কুষ্টিয়ার মিরপুরে এবার ১২৫ হেক্টর জমিতে হয়েছে তুলা চাষ।

ক্রমেই কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলায় তুলা চাষ জনপ্রিয় হচ্ছে। এ উপজেলায় এ বছর লক্ষ্য মাত্রার সমপরিমান ১২৫ হেক্টর জমিতে তুলার চাষ হয়েছে । তবে চাষের শুরুতে আগষ্ট মাসের বৃষ্টিতে দুই হেক্টর জমি পালিতে প্লাবিত হওয়ায় নষ্ট হয়েছে।

দেশী জাতের তুলা উৎপন্নের সময় লাগে ৬ মাস। অন্যদিকে হাইব্রীড জাতের তুলা উৎপন্ন হতে সময় লাগে সাড়ে ৫ মাস। তাই তুলাচাষীরা ক্রমেই ঝুঁকছে হাইব্রীড তুলা চাষের প্রতি। এ বছর তুলার ফলন ও দামে কৃষক বেশ সন্তুষ্ট।

উল্লেখ্য, গত বছর ২ হাজার ৪ শত টাকা মণ দরে সরকার তুলা ক্রয় করলেও চলতি বছর সরকার মণ প্রতি ৩ শত টাকা বাড়িয়ে ২ হাজার ৭ শত টাকা নির্ধারন করেছে।

মিরপুর উপজেলা কটন ইউনিট অফিসার আবদুস সাত্তার বলেন, এ বছর তুলার দাম বাড়ায় চাষীরা খুশি । এবার ফলনও বেশি হয়েছে।এতে চাষীরা কিছুটা পুষিয়ে নিতে পারবেন।

তিনি আরো জানান, তুলার বহুবিধভাবে ব্যবহার হয়। এক মণ তুলায় ২৮ কেজী তুলা বীজ ও ১২ কেজী ফ্রেশ তুলা থাকে। তুলা বীজ ভোজ্যতেল ও গ্লিসারিন হিসাবে ব্যবহার হয়। এক কেজী তুলা বীজে অপরিশোধীত ৬০০ গ্রাম তেল উৎপন্ন হয় এবং পরিশোধন করলে এককেজী তুলা বীজ থেকে ৪০০ গ্রাম ফ্রেশ ভোজ্য তেল পাওয়া যায়।

Facebook Comments Box

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *