শনিবার | ৮ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ



সত্যের পথে অবিচল | ২৪ ঘণ্টা বাংলা সংবাদ

দৌলতপুরে চরে বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হবে দুই ইউনিয়ন ।

দৌলতপুরে চরে বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হবে দুই ইউনিয়ন ।

দৌলতপুরে চরে বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হবে দুই ইউনিয়ন ।

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের মূল ভূখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন দুটি ইউনিয়ন। এই দুই ইউনিয়নে প্রায় ২০ হাজার পরিবারের বসবাস। পদ্মা নদীর ওপারে হওয়ায় এসব পরিবার স্বপ্নেও ভাবেনি তারা বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হবে। বিদ্যুতের আলোয় এলাকার শিক্ষার্থীরা পড়া লেখা করবে, শিক্ষার আলোয় আলোকিত হবে প্রতিটি পরিবারের সন্তানেরা। সেই অসম্ভব স্বপ্ন বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে রবিবার (৩ জানুয়ারি)।


এদিন কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট আঃ কাঃ ম. সরওয়ার জাহান বাদশাহ্ চরবাসীর স্বপ্নের বিদ্যুৎ সংযোগ উদ্বোধন করবেন। আর দৌলতপুর উপজেলার চিলমারী ও রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের ১৩ হাজার পরিবারের প্রায় অর্ধলক্ষ মানুষ আলোকিত হবে বিদ্যুতের আলোয়।

১৪ ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত কুষ্টিয়ার সীমান্তবর্তী বৃহৎ উপজেলা দৌলতপুর। এ উপজেলার দুটি ইউনিয়ন চিলমারী ও রামকৃষ্ণপুর মুল ভূখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন। পদ্মা নদীর ওপারে দুর্গম চরাঞ্চল হওয়ায় এখানকার মানুষ ছিল বিদ্যুৎ সুবিধা থেকে বঞ্চিত। তারা কোনোদিন ভাবেনি তাদের ঘর আলোকিত হবে বিদ্যুতের আলোতে।

সেই চরবাসীর স্বপ্ন পুরণ করেছে বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। স্বপ্নের বিদ্যুৎ পেয়ে তারা কেউ কৃষিতে সমৃদ্ধ হওয়ার কথা ভাবছেন, আবার কেউ গ্রামীণ জনগোষ্ঠীকে মিল কল কারখানার সুযোগ সুবিধা দিবে এমন ভাবনায় বিভোর হয়ে দিনক্ষণ গুনছেন।


চিলমারী ইউনিয়নরে বাসিন্দা ইকবাল হোসেন ও মহিউদ্দিন জানান, তারা স্বপ্নেও ভাবেনি বিদ্যুতের আলোতে আলোকিত হবে তাদের বাড়ি ও এলাকার লোকজন। এমন স্বপ্ন পুরণ হওয়ায় সেসহ এলাকার লোকজন প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

একইভাবে রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের চরপাড়া এলাকার সোহেল আহমেদ জানান, পদ্মা নদী পাড়ি দিয়ে চরের মধ্যে বিদ্যুৎ আসবে কোনোদিন কল্পনাও করিনি। সেই কল্পনা এখন বাস্তবে পরিণত হয়েছে। বিদ্যুৎ সুবিধার কারণে এখন তারা কৃষিসহ সব সেক্টরে উন্নতি করতে পারবেন।


সুমি নামে স্কুল পড়ুয়া এক শিক্ষার্থী বিদ্যুতের আলোতে পড়ালেখা করে নিজেকে আলোকিত মানুষ করে গড়ে তোলার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

চরবাসীর স্বপ্ন পূরণে খুশি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিও। বিদ্যুৎ সুবিধার কারণে ডিজিটাল সুবিধাসহ সবধরণের সুবিধার আওতায় আসবে ১৩ হাজার পরিবার সহ অর্ধলক্ষ চরবাসী। আর এমন কথা জানিয়েছেন চিলমারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমেদ ও রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজ মন্ডল।

ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়ার অঙ্গীকার ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীকে উন্নত সুযোগ সুবিধার আওতায় নিয়ে আসতে এবং চরবাসীর বিদ্যুৎ সুবিধা নিশ্চিত করতে সরকার কাজ করছে বলে জানিয়েছেন দৌলতপুর পল্লী বিদ্যুৎ জোনাল অফিসের ডিজিএম কে এম তুহিন।

কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য আডভোকেট আঃ কাঃ ম. সরওয়ার জাহান বাদশাহ্ বলেন, ২০১৮ সালের নির্বাচনী ইস্তেহারে চরবাসীর ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়ার অঙ্গীকার ছিল আমার। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী সে অঙ্গীকার বাস্তবায়ন করতে সক্ষম হয়েছি। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন প্রতিটি গ্রাম হবে শহর আজ সেই প্রতিশ্রুতির বাস্তবে পরিণত হয়েছে। আলোয় ভরে উঠবে চরবাসী যা ছিল চরবাসীর দীর্ঘ দিনের স্বপ্ন।

চরবাসী স্বপ্নেও ভাবেনি তারা কোনোদিন বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় আসবে। আজ সেই স্বপ্ন বাস্তবে পরিণত হয়েছে। আলোয় ভরে উঠবে চরবাসী। আর সেই আলোয় আলোকিত হবে চরবাসীর প্রতিটি স্বপ্ন। দুর্গম চরের প্রতিটি গ্রাম হবে এক একটি শহর। আর এসব শহরে গড়ে উঠবে ক্ষুদ্র শিল্পসহ উন্নত জীবন ব্যবস্থা।

Facebook Comments Box

Posted ৩:৪৯ অপরাহ্ণ | শনিবার, ০২ জানুয়ারি ২০২১

protidinerkushtia.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

মোঃ আসাদুজ্জামান, উপদেষ্টা
মোঃ রাকিব হাসান, প্রধান সম্পাদক
মোঃ খালিদ হাসান রিংকু, সম্পাদক ও প্রকাশক
গোলাম কিবরিয়া জীবন, বার্তা সম্পাদক
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় :

দিঘলকান্দী,(পুলিশ ক্যাম্প বাজার), ঝাউদিয়া, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া-৭০৫০।
নিউজ রুম : +৮৮ ০১৭৩২-৭১৩৪২১
ই-মেইল: protidinarkushtia@gmail.com

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রনালয়ে নিবন্ধনের জন্য আবেদনকৃত
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
error: Content is protected !!