বৃহস্পতিবার | ২৫শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ



সত্যের পথে অবিচল | ২৪ ঘণ্টা বাংলা সংবাদ

স্বামীর হাতেই খুন হন স্ত্রীসহ দুই সন্তান’

নিজশ্ব প্রতিনিধী

স্বামীর হাতেই খুন হন স্ত্রীসহ দুই সন্তান’

স্বামীর হাতেই খুন হন স্ত্রীসহ দুই সন্তান’

 


স্বামীর পরকীয়ার জেরে নরসিংদীতে স্ত্রী ও দুই শিশুসন্তানকে হত্যা করেছে স্বামী গিয়াস উদ্দিন মিয়া। আরটিভি নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন পিবিআইয়ের নরসিংদী পুলিশ সুপার মো. এনায়েত হোসেন মান্নান।

এর আগে, রোববার (২২ মে) সকাল সাড়ে নয়টায় উপজেলার ভাবলা গ্রামের শেখ বাড়ির পৃথক দুটি ঘর থেকে তিন মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহতরা হলেন, বাবলা গ্রামের গিয়াস উদ্দিন শেখের স্ত্রী রাহিমা বেগম (৩৫), তার ছেলে রাব্বি শেখ (১৩) এবং মেয়ে রাকিবা আক্তার (৬)। রাহিমা বেগম পেশায় একজন দর্জি ছিল। অন্যদিকে তার স্বামী গিয়াস উদ্দিন পেশায় একজন রং মিস্ত্রী কন্ট্রাক্টর।


স্থানীয়রা জানায়, রোববার সকালে বিলকিস বেগম নামে এক নারী বানাতে দেওয়া কাপড় আনতে যান বিলকিস বেগমের বাড়িতে। সেখানে গিয়ে তিনি দরজার নিচ দিয়ে রক্ত দেখতে পান। পরে তিনি চিৎকার করলে স্থানীয়রা এসে ঘরে ঢুকে রাহিমা বেগমের মরদেহ দেখতে পায়। এ ছাড়া পাশের ঘরে পাওয়া যায় তার দুই সন্তান রাব্বি শেখ ও রাকিবা আক্তারের মরদেহ। পরে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে দুপুরের দিকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে।

মরদেহ উদ্ধারের সময় নিহতের স্বামী গিয়াস উদ্দিন দাবি করেন, তিনি খবর পেয়ে গাজীপুর থেকে এসেছেন। রাতে বাড়িতে ছিলেন না তিনি। পাশের বাড়ির একজনের সঙ্গে তাদের বিরোধ ছিল এবং তারাই এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে।


পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার এনায়েত হোসেন মান্নান বলেন, নিহতের স্বামী ও দুই সন্তানের বাবা গিয়াস উদ্দিন নিজেই তাদের হত্যা করেছেন বলে স্বীকার করেছেন। গিয়াস উদ্দিন দাবি করছিলেন, তিনি খবর পেয়ে গাজীপুর থেকে এসেছেন। কিন্তু তার ফোন ট্র্যাক করে আমরা জানতে পারি তিনি গাজীপুর নয়, এই অঞ্চলেই ছিলেন।

পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার এনায়েত হোসেন মান্নান জানান, নিহতের স্বামী ও দুই সন্তানের বাবা গিয়াস উদ্দিন নিজেই তাদের হত্যা করেছে বলে আমাদের কাছে প্রাথমিকভাবে স্বীকার করেছেন। গিয়াস উদ্দিন দাবি করছিলেন, তিনি খবর পেয়ে গাজীপুর থেকে এসেছেন। কিন্তু তার ফোন ট্রেক করে আমরা জানতে পারি তিনি গাজীপুর নয়, এই অঞ্চলেই ছিলেন।

পরে তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে ঘটনায় সম্পৃক্ত থাকার কথা স্বীকার করেন। ক্রিকেট খেলার ব্যাট এবং চাকু দিয়ে তাদের আঘাত করেছিলেন বলে জানিয়েছেন। তবে ঠিক কী কারণে তিনি এমনটি করেছেন সে তথ্য জানার চেষ্টা চলছে।

তাকে নিয়ে আমরা অভিযান করছি হত্যা ব্যবহৃত আলামত উদ্ধার করার জন্য। নিজের পরকীয়ার জেরে এমন হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে। বাকিটা তদন্তের পর বলা যাবে।

Facebook Comments Box

Posted ৩:০৩ অপরাহ্ণ | রবিবার, ২২ মে ২০২২

protidinerkushtia.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

মোঃ শামীম আসরাফ, সম্পাদক ও প্রকাশক
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় :

ঝাউদিয়া বাবলু বাজার, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া ফোনঃ +৮৮ ০১৭৬৩-৮৪৩৫৮৮ ই-মেইল: protidinarkushtia@gmail.com

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রনালয়ে নিবন্ধনের জন্য আবেদনকৃত
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
error: Content is protected !!