শনিবার | ৮ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৩শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ



সত্যের পথে অবিচল | ২৪ ঘণ্টা বাংলা সংবাদ

৩১ দিন পর করোনা রোগীর সংখ্যা ২০ হাজারের নিচে

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

৩১ দিন পর করোনা রোগীর সংখ্যা ২০ হাজারের নিচে

করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ।ফাইল ছবি

টানা ৩১ দিন পর খুলনা বিভাগে করোনা রোগীর সংখ্যা ২০ হাজারের নিচে নেমেছে। সর্বশেষ গত ৪ জুলাই হাসপাতাল ও বাসায় মিলিয়ে ২০ হাজারের নিচে (১৯ হাজার ১৩২ জন) করোনা রোগী ছিলেন। এরপর থেকে বুধবার পর্যন্ত প্রতিদিনই করোনা রোগী ২০ হাজারের ওপরে ছিল।
 
স্বাস্থ্য দপ্তরের বৃহস্পতিবারের হিসেবে, বর্তমানে বাসা ও হাসপাতাল মিলিয়ে বিভাগের ১০ জেলায় করোনা রোগী রয়েছেন ১৯ হাজার ৮১৯ জন। তাঁদের মধ্যে হাসপাতালে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন ১ হাজার ২৪৯ জন। অন্যরা বাসায় আইসোলেশনে রয়েছেন।
 
বর্তমানে বাসা ও হাসপাতাল মিলিয়ে বিভাগের ১০ জেলায় করোনা রোগী রয়েছেন ১৯ হাজার ৮১৯ জন। তাঁদের মধ্যে হাসপাতালে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন ১ হাজার ২৪৯ জন। অন্যরা বাসায় আইসোলেশনে রয়েছেন।
এদিকে খুলনা বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় (বুধবার সকাল আটটা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল আটটা) করোনাভাইরাসে সংক্রমিত আরও ৩৪ জন মারা গেছেন। নতুন করে ৮১৭ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। একই সময়ে সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৩৫৮ জন। এর মধ্য দিয়ে বিভাগে সুস্থ হওয়া করোনা রোগীর সংখ্যা ৭৫ হাজার ছাড়াল। নমুনা পরীক্ষার তুলনায় বিভাগে করোনা শনাক্তের হার এখন ২৫ শতাংশ।
 
বৃহস্পতিবার খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। এর আগে বুধবার বিভাগে করোনায় সংক্রমিত ৩৫ জনের মৃত্যু হয়েছিল। ৭৪৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল। আগের দিনের চেয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা কম হয়েছে। এ সময় মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে। তবে শনাক্তের হার ও শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে।
 
 
গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে আরটি–পিসিআর, জিন এক্সপার্ট মেশিন এবং র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন—এই তিন প্রক্রিয়ায় মোট ৩ হাজার ২৬৭ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। শনাক্তের হার ২৫ শতাংশ। আগের ২৪ ঘণ্টা এর চেয়ে ১১১টি বেশি নমুনা পরীক্ষা হয়েছিল। শনাক্তের হার ছিল ২২ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ।
 
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, নতুন করে করোনা শনাক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে সর্বোচ্চ ২৩১ জন কুষ্টিয়ার। এ ছাড়া খুলনায় ১৪৫, যশোরে ১৩৫, মাগুরায় ৬৫, সাতক্ষীরায় ৫৭, বাগেরহাটে ৫৪, চুয়াডাঙ্গায় ৩৯, ঝিনাইদহে ৩৮, মেহেরপুরে ২৯ জন এবং নড়াইলে ২৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।
 
বিভাগে এখন পর্যন্ত মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৯৭ হাজার ৬৯৩ জনের। সংখ্যা বিবেচনায় জেলাগুলোর মধ্যে শীর্ষে আছে খুলনা। এখানে ২৪ হাজার ৫১৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। যশোরে ১৯ হাজার ৪৩২ জনের এবং কুষ্টিয়ায় ১৫ হাজার ৫০২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ ছাড়া বাগেরহাটে ৬ হাজার ২৯৬, চুয়াডাঙ্গায় ৬ হাজার ২০৮, ঝিনাইদহে ৮ হাজার ৪৬, সাতক্ষীরায় ৫ হাজার ৯১৮, নড়াইলে ৪ হাজার ৩২৯, মেহেরপুরে ৪ হাজার ৭৩ জন এবং মাগুরায় ৩ হাজার ৩৭৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।
 
বিভাগে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৭৫ হাজার ৩২০ জন করোনা রোগী। শনাক্তের সংখ্যা বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭৭ শতাংশের বেশি।
 
বিভাগে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা ২ হাজার ৫৫৪। মৃত্যুর হার ২ দশমিক ৬১। করোনায় মারা যাওয়া সর্বশেষ ৩৪ জনের মধ্যে কুষ্টিয়ায় ৯ জন, যশোরে ৬ জন, খুলনায় ও মেহেরপুরে ৪ জন করে, মাগুরা ও ঝিনাইদহে ৩ জন করে, বাগেরহাট ও নড়াইলে ২ জন করে এবং চুয়াডাঙ্গায় ১ জন রয়েছেন।
 
বিভাগের মধ্যে খুলনা জেলায় করোনায় সর্বোচ্চ ৬৫৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মৃত্যু কুষ্টিয়ায় ৫৯৮ জনের। এ ছাড়া যশোরে ৩৭৪, ঝিনাইদহে ২১৭, চুয়াডাঙ্গায় ১৭২, মেহেরপুরে ১৫০, বাগেরহাটে ১২৯, নড়াইলে ৯৬, সাতক্ষীরায় ৮৫ ও মাগুরায় ৭৬ জন মারা গেছেন।
Facebook Comments Box


Posted ১০:৩৭ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৫ আগস্ট ২০২১

protidinerkushtia.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

মোঃ শামীম আসরাফ, সম্পাদক ও প্রকাশক
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় :

ঝাউদিয়া বাবলু বাজার, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া ফোনঃ +৮৮ ০১৭৬৩-৮৪৩৫৮৮ ই-মেইল: protidinarkushtia@gmail.com

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রনালয়ে নিবন্ধনের জন্য আবেদনকৃত
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
error: Content is protected !!