শনিবার | ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ



সত্যের পথে অবিচল | ২৪ ঘণ্টা বাংলা সংবাদ

৭০ অনুচ্ছেদ সংসদ সদস্যদের স্বাধীনতা খর্ব করেছে: জিএম কাদের

অনলাইন নিউজ ডেস্ক

৭০ অনুচ্ছেদ সংসদ সদস্যদের স্বাধীনতা খর্ব করেছে: জিএম কাদের

সংবিধানের ৭০ অনুচ্ছেদ সংসদ সদস্যদের স্বাধীনতা খর্ব করেছে বলে অভিযোগ করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদের।


তিনি বলেন, সংবিধানের ৭০ অনুচ্ছেদ সংসদ সদস্যদের বিকালঙ্গ করেছে।৭০ অনুচ্ছেদের কারণে সংসদ সদস্যরা দলীয় সিদ্ধান্তের বিপক্ষে ভোট দিতে পারেন না। এ কারণেই সংসদে এক নায়কতন্ত্র বা স্বৈরতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়। সোমবার (১৯ অক্টোবর) দুপুরে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে জাতীয় শ্রমিক পার্টির যৌথ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

কাদের বলেন, ৯০ সালে পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ তিন জোটের রুপরেখা অনুযায়ী ক্ষমতা হস্থান্তর করেন। কিন্তু ৯১ সালে তিন জোটের রুপরেখা অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি শাসিত সরকার ব্যবস্থা পরিবর্তন করে সংসদীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার নামে দেশে সংসদীয় স্বৈরতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এতে সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের প্রধানই সরকার প্রধান হচ্ছেন, তিনি যা বলবেন তাই হবে। সংবিধানের ৭০ অনুচ্ছেদের মাধ্যমে সংসদ সদস্যদের পায়ে শেঁকল পড়ানো হয়েছে। কারণ, দলের বাইরে কথা বললে সংসদ সদস্যের পদ চলে যাবে।

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান আরো বলেন, জাতীয় পার্টি হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে সম্ভাবনাময় রাজনৈতিক শক্তি।আওয়ামী লীগ দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থেকে যেমন উন্নয়ন করেছে ঠিক তেমনি বিভিন্ন কর্মকান্ডে সাধারণ মানুষের মনে কষ্ট দিয়েছে। দেশের মানুষ উন্নয়নের কথা বেশি দিন মনে রাখেনা কিন্তু কষ্টের কথা দীর্ঘদিন মনে রাখে।


তিনি বলেন, বিএনপি চরম নেতৃত্ব সংকটে ভুগছে। বিএনপি নেতা-কর্মীরা হতাশাগ্রস্থ হয়ে পড়েছে। দেশের মানুষও বিএনপিকে নিয়ে হতাশ হয়ে পড়েছে। এমন বাস্তবতায় জাতীয় পার্টি হচ্ছে জনগণের আস্থার একমাত্র রাজনৈতিক শক্তি। দেশের মানুষ জাতীয় পার্টির দিকে তাকিয়ে আছে। জনগণ চায় জাতীয় পার্টি আরো শক্তিশালী হোক, জাতীয় পার্টি নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে রাষ্ট্র পরিচালনা করুক।

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের নয় বছরের শাসনামলে দেশ সুশাসন ছিলো, আইনের শাসন ছিলো। দেশে হত্যা, ধর্ষণ, চাঁদাবাজী, দলবাজী ও টেন্ডারবাজী ছিলোনা। তাই মানুষের ভরসার একমাত্র দল হচ্ছে জাতীয় পার্টি। আগামী দিনে জাতীয় পার্টিতে মানুষ দলে দলে যোগদান করবে।


এসময় জাতীয় পার্টি মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু বলেন, দেশে বিচারহীনতা সংস্কৃতি তৈরী হয়েছে। তাই অপরাধ প্রবণতা রোধ করতে পারছেনা সরকার।

তিনি বলেন, প্রকৃত অপরাধীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকছে। পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের শাসনামলে অপরাধীদের বিচার হয়েছে। প্রমাণ হয়েছে শুধু জাতীয় পার্টিই দেশে উন্নয়ন এবং সুশাসন দিতে পারে। আগামী নির্বাচনেও জাতীয় পার্টি ক্ষমতার নিয়ামক শক্তি হিসেবে আবির্ভূত হবে। জাতীয় পার্টি বিকাশমান রাজনৈতিক শক্তি হিসেবে সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জন করেছে।

পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মো. আজম খান, চট্টগ্রাম বিভাগীয় অতিরিক্ত মহাসচিব এ্যাড. রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) আব্দুস সালাম, আহসান আদেলুর রহমান এমপি, যুগ্ম মহাসচিব বেলাল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ হেলাল উদ্দিন, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক এম.এ. রাজ্জাক খাঁন, যুগ্ম দফতর সম্পাদক মাহমুদ আলম বক্তব্য রাখেন।

মতবিনিমিয় সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় শ্রমিক পার্টির সভাপতি একেএম আসরাফুজ্জামান, সভা পরিচালনা করেন- জাতীয় শ্রমিক পার্টির সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শেখ মুহাম্মদ শান্ত

Facebook Comments Box

Posted ১২:০৯ অপরাহ্ণ | সোমবার, ১৯ অক্টোবর ২০২০

protidinerkushtia.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

মোঃ শামীম আসরাফ, সম্পাদক ও প্রকাশক
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় :

ঝাউদিয়া বাবলু বাজার, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া ফোনঃ +৮৮ ০১৭৬৩-৮৪৩৫৮৮ ই-মেইল: protidinarkushtia@gmail.com

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রনালয়ে নিবন্ধনের জন্য আবেদনকৃত
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
error: Content is protected !!